পেপের উপকারিতা ও অপকারিতা সম্পর্কে জানুন

পেঁপের উপকারিতা ও অপকারিতা

প্রিয় পাঠক, আজ আমরা জানবো পেঁপের উপকারিতা ও অপকারিতা সম্পর্কে । পেঁপের অপকারিতা উপকারিতা সম্পর্কে জানতে আমাদের পোস্টটি সম্পূর্ণ পূরণ।

পেঁপের ক্ষতিকর দিক 

পরিচিত একটি ফল পেঁপে। এর নানা উপকারিতার কথা জানেন সবাই। পেটের জন্য বেশ ভালো এই ফলটি। পাকা পেঁপে খেতে মিষ্টি হয়। আবার কাঁচা পেঁপে সালাদ বা তরকারি হিসেবে খাওয়া হয়।ব্যাকটেরিয়া ও ছত্রাকরোধী গুণাবলী রয়েছে পেঁপের। এর পাতা ডেঙ্গুজ্বর রোধে বেশ কার্যকর। তবে সব ভালো দিকের পাশাপাশি এর কিছু খারাপ দিকও রয়েছে। চলুন এমন কিছু ক্ষতিকর দিক সম্পর্কে জেনে নিই-

গর্ভপাত-পেঁপে পুষ্টিকর ফল হলেও এর বীজ ও শেকড় গর্ভপাত ঘটাতে পারে। কাঁচা পেঁপে জরায়ু সংকুচিত করে ফেলে। পাকা পেঁপেতে অবশ্য এই ঝুঁকি কিছুটা কম আছে। তাই গর্ভবতী হলে পেঁপে এড়িয়ে চলুন।

খাদ্যনালীতে বাধা-যে কোনো পুষ্টিকর খাবারই অতিরিক্ত খাওয়া উচিত নয়। অতিরিক্ত পেঁপে খেলে তা খাদ্যনালীর ওপর ক্ষতিকর প্রভাব ফেলে। দিনে এক কাপের বেশি পেঁপে খাওয়া উচিত নয়।

গর্ভবতী নারীর জন্য ক্ষতিকর-পেঁপে পাতায় রয়েছে ‘পাপাইন’ নামক উপাদান যা গর্ভের সন্তানের জন্য বিষাক্ত হতে পারে। অনেকের মতে, সন্তানকে বুকের দুধ খাওয়ান এমন নারীদেরও পেঁপে এড়িয়ে চলা উচিত।

অ্যালার্জি-কাঁচা পেঁপের বোটা থেকে যে সাদা তরল বের হয় তা চামড়ায় অ্যালার্জি সৃষ্টি করতে পারে।

রক্তে শর্করার পরিমাণ-রক্তে শর্করার পরিমাণ কমায় পেঁপে। যারা নিয়মিত রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণের ওষুধ খান তাদের জন্য এটি বিপজ্জনক হতে পারে।

প্রজনন ক্ষমতা কমিয়ে দেয়-পেঁপের বীজের নির্যাস পুরুষের প্রজনন ক্ষমতা কমাতে সক্ষম। বীর্যের শুক্রাণুর সংখ্যা কমিয়ে দেয় এটি। সে সঙ্গে এটি শুক্রাণুর নাড়াচাড়ার ক্ষমতাও কমিয়ে দেয়।

পেঁপে অবশ্যই বেশ উপকারী। তবে তা যেন ক্ষতির কারণ না হয় খেয়াল রাখবেন।

কাঁচা পেঁপের উপকারিতা

স্বাস্থ্যকর খাবারের তালিকায় পেঁপের অবস্থান অন্যতম। এটি কাঁচা ও পাকা দুভাবেই খাওয়া হয়ে থাকে। কাঁচা অবস্থায় সবজি ও পাঁকা অবস্থায় ফল হিসেবে খাওয়া হয় পেঁপে। আর এটি পাওয়া যায় সারা বছরেই।আমাদের দেশে কাঁচা পেঁপে ভাজি ও ডাল দিয়ে নানারকম তরকারি খাওয়া হয়ে থাকে। এমনকি এটি বিভিন্ন মাংসেও দিয়ে রান্না করা হয়। এ ছাড়া কাঁচা পেঁপের হালুয়া আমাদের দেশে বেশ জনপ্রিয়।

এত সুস্বাদু খাবার হওয়ার পাশাপাশি কাঁচা পেঁপের রয়েছে অনেক স্বাস্থ্য উপকারিতা। তাই বিশেষজ্ঞরা একে 'সুপারফুড' হিসেবেও আখ্যায়িত করে থাকেন। শরীরকে সুস্থ রাখতে ও শরীর থেকে বিষাক্ত পদার্থ দূর করার পাশাপাশি এটি জ্বর নিরাময়ে, পেটের সমস্যা দূর করতে, গ্যাস্ট্রিক এবং বদহজমেও অনেক উপকারী।

জানুন কাঁচা পেঁপের বিভিন্ন স্বাস্থ্য উপকারিতা সম্পর্কে—

১. এনজাইমের উৎস

কাঁচা পেঁপেতে প্রচুর পরিমাণে এনজাইম থাকে। এতে কেমোপেইন, প্যাপিন, পাইপাইন ও সাইমোপ্যাপিনের মতো উপাদান থাকে। এগুলো কার্বোহাইড্রেট ও প্রোটিন চর্বি দূর করতে সাহায্য করে।

২. পেটের জন্য উপকারী

এটি পেটের জন্য অনেকটা ওষুধের মতো কাজ করে থাকে। কাঁচা পেঁপে কোলনের জন্য এবং পেটের পচন প্রকৃয়ার জন্য অনেক ভালো। এটি পেটে গিয়ে অনেকটা ঝাড়ুর মতো করে পেটকে পরিষ্কার করে ফেলে। আর এতে থাকা ফাইবার কোষ্ঠকাঠিন্য, পাইলস, ডায়রিয়া ও গ্যাসের সমস্যা নিরাময়ে অনেক কার্যকরী।

৩. ত্বকের জন্য ভালো

কাঁচা পেঁপে মৃত কোষকে দূর করতে কার্যকরী। আর এতে থাকা ফাইবার আমাদের শরীরের ভেতরেও পরিষ্কার করে। তাই এটি খেলে ব্রণ ও ত্বকের নানা সমস্যা দূর করতে অনেক ভালো কাজ করে।

৪. পুষ্টির উৎস

ব্রিটিশ জার্নালে প্রকাশিত এক গবেষণায় বলা হয়েছে, কাঁচা পেঁপেতে গাজর ও টমেটোর চেয়েও অনেক বেশি ক্যারটিনয়েডস পাওয়া যায়। তাই এটি আমাদের শরীরের ক্যারটিনয়েড ও ভিটামিনের ঘাটতি পূরণ করে পুষ্টির উৎস হিসেবে কাজ করে।

এ ছাড়া কাঁচা পেঁপে হাঁপানি, অস্টিও আর্থারাইটিস, গাউট, রিউমাটয়েড আর্থ্রাইটিসের রোগের উপকারে এবং হার্টকে ভালো রাখতে অনেক কার্যকরী।

পেঁপে সিদ্ধ উপকারিতা

মূলত পেঁপেতে ফাইবার রয়েছে। যা সিদ্ধ করলে লাইকোপিন উপাদান পাওয়া যায়। এটি ক্যানসার রোধ ছাড়াও শরীরের জন্য খুবই উপকারী। নিয়মিত পেঁপে সিদ্ধ করা পানি খাওয়ার ফলে স্তন, কোলন ও প্রোস্টেট ক্যানসার থেকে উপকার পাওয়া যেতে পারে।

পাকা পেঁপের উপকারিতা

পাকা পেঁপের কত গুণ, জানেন না অনেকে। চিকিৎসক থেকে পুষ্টিবিদ— সকলেই এই ফলকে ‘মহৌষধ’ বলে মনে করেন। শিশুদের প্রতিরোধ ক্ষমতা গড়ে তুলতে, বয়স্কদের অর্শের সমস্যায় আবার কম বয়সীদের ওজন কমানোর ডায়েটে পাকা পেঁপের স্থান সকলের আগে। বিভিন্ন ভিটামিন এবং খনিজের প্রাকৃতিক উৎস পাকা পেঁপে চোখের জন্যও উপকারী। বিটা ক্যারোটিনে ভরপুর পাকা পেঁপে ত্বকের স্বাস্থ্য রক্ষায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

 পেপে খেলে যাদের ক্ষতি হতে পারে।পেঁপের উপকারিতা সম্পর্কে সবারই কমবেশি ধারণা আছে। পেঁপে কাঁচা বা পাকা দুই অবস্থাতেই খাওয়া যায়। অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ পেঁপে ত্বক ও চুলের জন্য বিশেষভাবে উপকারী।এ ছাড়াও পেঁপেতে থাকে প্যাপেইন নামক এনজাইম। যা খাদ্যের বিপাক প্রক্রিয়ায় সাহায্য করে। হৃদরোগ এবং উচ্চ কোলেস্টেরল রোগীদেরকে পেঁপে খাওয়ার পরামর্শ দেন চিকিৎসকরা।

তবে জানেন কি? পেঁপে শুধু স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী নয়, বরং ক্ষতির কারণও হতে পারে। বয়স্কদের পাশাপাশি ছোটদের ক্ষেত্রে পেঁপে ক্ষতিকর হতে পারে। জেনে নিন পেঁপে খেলে শারীরিক যেসব সমস্যা হতে পারে-

>> চিকিৎসকদের পরামর্শ মতে, এক বছরের কম বয়সী শিশুদেরকে পেঁপে খাওয়ানো উচিত নয়। পেঁপেতে অনেক ফাইবার থাকে, যা ছোট শিশুদের ক্ষেত্রে সমস্যার কারণ হতে পারে।

আপনার বাচ্চার জন‌্য পেঁপের পাঁচটি স্বাস্থ‌্য উপকারিতা 

পেঁপে একটি সুস্বাদু এবং স্বাস্থ্যের জন্য অত্যন্ত উপকারী একটি ফল। পুষ্টিগুন বিবেচনায় পেঁপে অনেক ফলের চেয়ে এগিয়ে রয়েছে। তাই পেঁপের আরেক নাম পাওয়ার ফ্রুট কারণ, এতে রয়েছে অনেক রোগের নিরাময় ক্ষমতা। সহজলভ্য এবং কম দামে পাওয়া যায় বলে এর জনপ্রিয়তাও অনেক।
৭ মাস পেরোলেই আপনার বাচ্চাকে রোজ কাঁচা-পাকা পেঁপে খাওয়াতে শুরু করুন।
পড়ে নিন এর পুষ্টিগুণ!
কোষ্ঠকাঠিন‌্য সারিয়ে তোলে
আপনার বাচ্চার যদি কোষ্ঠকাঠিন‌্যের সমস‌্যা থাকে তাহলে দুই-তিন ফালি পেঁপে সেদ্ধ করে চটকে বাচ্চাকে খাওয়ান। আশা করা যায় কোষ্ঠকাঠিন‌্য দূর হয়ে যাবে ।
হজম ক্ষমতা বাড়ায়
পেপেতে আছে প‌্যাপাইন নামের এনজাইম যা যেকোন খাবারকেই হজম করতে সাহায‌্য করে।
রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়
পেঁপেতে থাকা ভিটামিন সি বাচ্চার রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়
ত্বক ভাল রাখে
পেঁপেতে থাকা ভিটামিন এ শিশুর ত্বককে ভাল ও র‌্যাশমুক্ত রাখে।
কৃমিনাশক
পেঁপে বাচ্চার জন‌্য কৃমিনাশক হিসেবেও কাজ করে।

Comments